পূর্ণতা

0
61

যতবার দেখেছি তোমায় বেড়েছে মুগ্ধতা
না, কারণ তোমার ভুবন ভোলানো সৌন্দর্য্য নয়
বরং কারণ নিহিত তোমার ভালবাসার ধরণে
শতসহস্র পৃষ্ঠা পড়েও বুঝি নি ভালবাসার সঙ্গা
অথচ তোমার কাছে আসলেই বুঝে যাই ভালবাসা।
তোমার সামান্য অভিমানেও আমি আমার মনে শুনেছি পাড় ভাঙার শব্দ।
পৃথিবীর যাবতীয় বৈরীতায় তোমার ওই শান্ত স্নিগ্ধ মুখটি দিয়েছে সুখ।
তুমি চোখে অশ্রুর অঞ্জলি সাজাও আর আমি বুঝে যাই আমার প্রতি তোমার ভালবাসার গভীরতা ।
একটা আহ্বান করি শুনবে-আমার চোখেও জল এনে দাও
অতপর দু’জনে একসাথে ঝড়াই কিছু অশ্রু।
আচ্ছা অশ্রুর কথা থাক এবার বলি তোমার অবদানের কথা-
তুমি যে একটু একটু করে আমাকে প্রেমিক করে তুললে সে দায় এড়ানোর সাধ্য আমার নেই
এ যেন নিরস মরুতে বীজ বপনেও সফলতা তোমার।
এদিক থেকে তুমিই আমার প্রেমের সঞ্চারীণী
আমার প্রেমিক সত্তার রুপকার।
আমার জীবনের নিগূঢ় কষ্টটুকু কে বুঝেছে তুমি ছাড়া?
কে দিয়েছে হৃদয়ের এত কাছে স্থান?
জানি উর্বর মাটি সহজেই চষা চলে
অনুর্বরতাকে উর্বর করার দুঃসাহসিকতা ক’জনের বল?
এদিক থেকে আমি কৃতার্থ তোমাতে।
নশ্বর দেহে যে চিরঞ্জীব মন তাতে তোমার যে চিরস্থায়ী অবস্থান
তাই দিয়েছে জীবনের পূর্ণতা।