The Origin of the Words ‘Aam’ and ‘Mango’

0
133

আমের বৈজ্ঞানিক নাম Mangifera indica. নামটির প্রজাতির অংশ শুনলেই কিছুটা ধারণা করা যায় এটির উৎপত্তি ভারতে।  হ্যা, আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের হিমালয়ে, ইন্দো-বার্মার সীমারেখা ঘেঁষে অনেক বছর আগে আমের এই নামের যাত্রা শুরু হয়েছিল।

সেসময় ভারতের পুঁথিগত ভাষা ছিল সংস্কৃত। সংস্কৃতে এই আমকে বলা হত ‘আম্র’। বর্তমানের আম ফলকে একসাথে বলা হত ‘আম্র-ফলম’। পরবর্তীতে উত্তর ভারতের হিন্দি ভাষায় এই ‘আম্র-ফলম’ ‘আম ফল’এ ধ্বনিগত পরিবর্তনের মাধ্যমে রূপান্তরিত হয়। এরপর আম ফলের গাছ ভারতের উত্তর অংশ থেকে দক্ষিণের দিকে বিভিন্ন মাধ্যমের সাহায্যে পরিযায়ী হতে থাকে। সেসময় দক্ষিণ ভারতের ভাষা ছিল তামিল।

তামিল ভাষাতে হিন্দি শব্দ ‘ফল’কে বলা হল ‘কায়’। তাই ‘আম-ফল’কে বলা হতে লাগলো ‘আম-কায়’। সময়ের সাথে ধ্বনি পরিবর্তনের সু্যোগে এই ‘আম-কায়’ হয়ে গেল ‘মাম-কায়’। ‘মাম-কায়’ মানুষের মুখে আরো সহজিত হওয়ার উদ্দেশ্যে ‘মাঙ্গায়’ এ পরিবর্তিত হল।

ঠিক সেই সময় তামিল ভাষার কোলে জন্ম হচ্ছিল মালায়লাম ভাষার। এই কন্যা ভাষাতে ‘মাঙ্গায়’ হয়ে গেল ‘মাঙ্গা’।

ঠিক উপরের বিবর্তন ঘটতে কয়েক হাজার বছর লেগে গিয়েছিল। এর পরের ঘটনাগুলো খুবই সংক্ষিপ্ত।

ভাস্কো-দা-গামা ভারতের কালিকটে না পৌছানো পর্যন্ত ইউরোপীয়ানদের কেউই কখনো আমকে দেখেন নি। পরবর্তীতে এ দেশে ব্যবসা-বাণিজ্যের মাধ্যমে তারা এ ফলের সাথে পরিচিত হন এবং আমের মালায়লাম রূপ ‘মাঙ্গা’ গ্রহণ করেন।

সেসময় ঘটে এক মজার ঘটনা। কালিকটে জাহাজ ভিড়ানো এক পর্তুগিজের একজন ইংরেজি বন্ধু ছিল যে ব্রিটেনে থাকতো। তো এই পর্তুগিজ আমের প্রতি এতটাই মুগ্ধ হয়েছিলেন যে, তিনি তার ইংরেজ বন্ধুকে এই নতুন ফল সম্পর্কে অবহিত করতে চিঠি লিখেন। সেসময়ের ভারতে টাইপরাইটারের প্রচলন হয় নি। মানুষ কালি দিয়েই লেখালেখির কাজ করত।

পর্তুগিজ বন্ধু ঠিকই ‘মাঙ্গা (Maanga)’ লিখেছিলেন কিন্তু তার বিলেতি বন্ধু এটিকে পড়েছিলেন ‘ম্যাঙ্গো (Maango)’ হিসেবে কারণ স্বভাবতই পর্তুগিজ শব্দ ‘ও (o)’ দিয়ে শেষ হতো যেমনঃ পটেটো, এভোক্যাডো, টমেটো, টোবাকো ইত্যাদি।

এভাবেই ‘ম্যাঙ্গো (Maango)’ শব্দটি ইংরেজদের অভিধানে জায়গা করে নিল।

Botanical name – Mangifera indica.
Sanskrit – aamraphalam
Hindi – aamphal
Tamil (1st stage) – aamkaay
Tamil (2nd stage) – maamkaay – maangai
Malayalam – maanga (manga)
Portuguese – maanga (manga)
English – maango (mango)